অনলাইন আয়টিপস এন্ড ট্রিকস

ঘরে বসে অনলাইনে আয় করুন ২০২২

বর্তমানে আমাদের দেশে বেকারত্ব সমস্যা অনেক হারে বেড়ে গেছে। তাই এই বেকারত্ব সমস্যা সমাধানের জন্য অনেকেই নানা ধরনের আয়ের পদ্ধতি খুঁজে বের করছে এবং উক্ত পদ্ধতিতে কাজ করে টাকা উপার্জন করছে।

এই নানা ধরনের পদ্ধতির মধ্যে অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি বর্তমানে আমাদের দেশে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। তাই আজকে এই ব্লগে অনলাইন আয় করা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

অনলাইনে টাকা আয় করার নানা পদ্ধতি রয়েছে, এর মধ্যে বেশি জনপ্রিয় পদ্ধতিগুলো নিয়ে নিচে আলোচনা করা হয়েছে।

ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং

অনলাইনে টাকা আয় করার যতগুলো মাধ্যম আছে তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ফ্রিল্যান্সিং। ফ্রিল্যান্সিং হলো বর্তমানে সবচেয়ে স্মার্ট জব।

যেকোনো চাকরি করার তুলনায় ফ্রিল্যান্সিং করা কম শ্রমের কাজ এবং অন্যান্য চাকরির তুলনায় অনেক বেশি আয় করা যায় ফ্রিল্যান্সিং করে। সাধারণত বিশ্বের  বিভিন্ন বড় বড় প্রতিষ্ঠান তাদের বিভিন্ন কাজ যেমন ভিডিও এডিট করা, এক্সেলের মাধ্যমে বেতন ভাতার বিল প্রস্তুত করা, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব সাইটে তথ্য যোগ করা ইত্যাদি কাজ অনলাইনের মাধ্যমে অন্যকে দিয়ে টাকার বিনিমিয়ে করায়।

একটি স্মার্ট ফোন বা ল্যাপটপ বা পিসি থাকলে এবং তার সাথে একটি ওয়াই ফাই বা ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে বিশ্বের যাকোনো প্রান্ত থেকে ফ্রিল্যান্সিং করা যেতে পারে। তবে ফ্রিল্যান্সিং করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অন্য দেশ এর থেকে অনেক পিছিয়ে আছে। সবচেয়ে এগিয়ে আছে আমাদের প্রতিবেশি দেশ ভারত।

ব্লগিং (Blogging)

ব্লগিং দিয়ে আয় করা অনেক পুরোনো হলেও অত্যন্ত কার্যকারী একটি পদ্ধতি। ব্লগ লিখে ফ্রিল্যান্সিং বা ব্লগ ওয়েব সাইট বানিয়ে টাকা আয় করা যায়। তবে এক্ষত্রে অনেক শ্রম দিতে হয়।
ব্লগিং করে আয় করতে চাইলে এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জেনে নিন।

ই- কমার্স (E-Commerce)

ইলেকট্রনিক কমার্সকে সংক্ষেপে ই কমার্স বলা হয়। মূলত অনালাইনে ব্যবসা বাণিজ্য করাকে ই-কমার্স বলা হয়। ই-কমার্স এ পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে, ভোক্তার কাছে পৌছে বা ডেলিভারি দিয়ে তার বদলে মুল্য গ্রহণও অনলাইনে হয়। ই-কমার্স এ সাধারণ ব্যবসা বাণিজ্যের তুলানায় খরচ কম হয়।

দ্রুত অর্ডার নেওয়া যায় এবং দ্রুত ডেলিভারি দেওয়া যায়। তবে এ ক্ষেত্রে দক্ষ জনবলের অভাব রয়েছে। প্রয়োজনে ই-কমার্স এর জন্য একটি ওয়েব সাইট ও একটি ফেসবুক পেইজ তৈরি করা যেতে পারে।
ই-কমার্স নিয়ে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

ওয়েব সাইট এর মাধ্যমে আয়

ওয়েব সাইট তৈরি করার মাধ্যমে আয় করা সম্ভব। বিভিন্ন ব্লগ নিশ ওয়েব সাইট, ইমেজ সাইট, ই-কমার্স সাইট তৈরি করে তাতে বিভিন্ন এড নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে টাকা আয় করা যায়। তবে এই ক্ষেত্রে আয় করার জন্য প্রচুর ট্রাফিক আনতে হবে। যার জন্য অবশ্যই SEO করতে হবে।

ইউটিউব এর মাধ্যমে আয়

বর্তমানে অনেকে ইউটিউবিং করে আয় করছে।  এই ক্ষেত্রে তদের আয় নির্ভর করে ওয়াচ টাইম, ভিউ এবং সাবস্কাইবের উপর এবং এড বসিয়ে টাকা উপার্জন করে। ভালো ইউটিউবার হতে পারলে ভালো পরিমাণে টাকা আয় করা সম্ভব।

অনুবাদের মাধ্যমে আয়

বিভিন্ন ওয়েব সাইট আছে যেখানে অনেক বই অথবা ব্লগ বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদ করা হয়। এসকল কাজ বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইটেও পাওয়া যায়। যারা বিদেশি ভাষা ভালো জানেন তারা এই ধরনের কাজ করতে পারেন। জার্মান, ফারসি, ইংরেজি ইত্যাদি ভাষা অন্য ভাষায় অনুবাদ করতে হয়।

তবে এই ধরনের কাজ করার জন্য প্রযুক্তি সম্পর্কে অত্যন্ত ভালো জ্ঞান থাকা জরুরী। এছাড়া উন্নত ডিভাইস ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। তবেই এভাবে আয় করা সম্ভব। ইউটিউবিং করার জন্য ভিডিও কোয়ালিটি ভালো থাকতে হবে।

ব্লগ লেখার জন্য অবশ্যই কন্টেন্ট কোয়ালিটি উন্নত থাকতে হবে এবং বেশি ওয়ার্ড হতে হবে।
ব্লগটি ভালো লাগলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন এবং পাশে থাকবেন।

ধন্যবাদ

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্টেড

আপনি সম্ভবত অ্যাডব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করতে চাইলে অবশ্যই অ্যাডব্লকার ডিজেবল করতে হবে।