Deprecated: Hook custom_css_loaded is deprecated since version jetpack-13.5! Use WordPress Custom CSS instead. Jetpack no longer supports Custom CSS. Read the WordPress.org documentation to learn how to apply custom styles to your site: https://wordpress.org/documentation/article/styles-overview/#applying-custom-css in /home/globckub/public_html/banglatechspot.com/wp-includes/functions.php on line 6078
Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়? ক্যানভা ডিজাইন কি?
টেক জ্ঞান

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়? ক্যানভা ডিজাইন কি?

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়? ক্যানভা ডিজাইন কি?

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়ঃ বর্তমানে অনলাইন সেক্টরে কাজ করার মত রয়েছে নানা মাধ্যম। এখন প্রায় বেশিরভাগ মানুষ সরকারি চাকরির পেছনে না ছুটে অনলাইন ভিত্তিক কাজে নিজেদেরকে জড়িয়ে ফেলতে চাচ্ছেন।

আর অনলাইনে বিভিন্ন কাজে ছোটখাটো গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য canva খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যবহার্য একটি সফটওয়্যার। যেটা সম্পূর্ণ ফ্রিতে ব্যবহার করা যায়। 

অনেকেই জানেন না canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়। তাই আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে জানাব– canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এবং ক্যানভা এর প্রয়োজনীয়তা কি ইত্যাদি এ সম্পর্কে।

তো সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা আসুন কথা না বাড়িয়ে আমাদের মূল আলোচনা পর্ব শুরু করি। 

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়?

ক্যানভা দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এ সম্পর্কে জানার পূর্বে ক্যানভা কাকে বলে, ক্যানভা ডিজাইন বলতে কী বোঝায় ইত্যাদি সম্পর্কে জেনে নেওয়াটা অধিক বেশি জরুরী।

তবে অবশ্যই যারা ক্যানভা লিখে সার্চ করেছেন তারা এটুকু জানেন, ক্যানভাঁ মূলত এমন একটা সফটওয়্যার যেখানে কোন কিছুর ডিজাইন করা যায়। তাহলে আসুন ধারাবাহিকভাবে জেনে নেই Canva সম্পর্কে সমস্ত বৃত্তান্ত। 

আমাদের আজকের আলোচনায় যা যা থাকছে: 

  • Canva কি?
  • ক্যানভা ডিজাইন কি?
  • ক্যানভা ডিজাইনের প্রয়োজনীয়তা
  • canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায়?
  • ক্যানভা প্রো একাউন্ট এর সুবিধা
  • ক্যানভা ব্যবহার করার নিয়ম
  • ক্যানভা থেকে আয় করার উপায়
  • ক্যানভা এর সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

Canva কি? ক্যানভা কাকে বলে?

ক্যানভা হচ্ছে একটি চিত্রলৈখিক নকশা প্রণয়ন সরঞ্জাম ভিত্তিক ওয়েবসাইট। বলতে পারেন এটি একটি গ্রাফিক ডিজাইন করার অ্যাপ।

আরও পড়ুনঃ  ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন? ফেসবুক মার্টিকেটিং টিপস ২০২৩

কেননা ক্যানভা এর ওয়েব ভার্সন এবং অ্যান্ড্রয়েড ও আই ও এস এপ্স রয়েছে। যেটা ব্যবহার করে মোটামুটি ভালো মানের গ্রাফিক্স ডিজাইন করা যায়। 

আরেকটু অন্য ভাষায় বললে বলা যায়– ক্যানভা হচ্ছে একটি গ্রাফিক্স ডিজাইন প্লাটফর্ম। যেটা নানা ধরনের ভিজুয়াল কন্টেন্ট তৈরিতে ব্যবহার করা যায় পাশাপাশি বিভিন্ন লোগো ডিজাইন করা সম্ভব হয়।

ক্যানভা দিয়ে কি কি কাজ করা যায়? ক্যানভার কাজ কি?

ক্যানভা একটি গ্রাফিক্স ডিজাইন করার প্ল্যাটফর্ম। এখানে মূলত বিভিন্ন ডিজাইনিং এর কাজ করা যায় তবে ক্যানভা দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এটা পয়েন্ট আকারে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো।

তবে তার আগে জানিয়ে নেই কেনভা মূলত একটি জনপ্রিয় ও দারুণ ব্যবহার্য সফটওয়্যার। যেটা সোশ্যাল মিডিয়া গ্রাফিক্স, পোস্টার, প্রেজেন্টেশন, ডকুমেন্ট বিভিন্ন লোগো, সোশ্যাল মিডিয়াতে সিডিউল ফটো আপলোডের সুবিধা, প্রিমিয়াম ফন্ট, অ্যানিমেশন, ভিডিও গ্রাফিক্স টেমপ্লেট এবং কনটেন্ট ও অন্যান্য ভিউয়াল কনটেন্ট তৈরিতে ব্যবহার করা যায়।

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এ প্রশ্নের উত্তর জানতে মূলত আপনাদের জন্য নিচের পয়েন্ট গুলো জরুরী।

কেননা ক্যানভা ব্যবহার করে গ্রাফিক্স ডিজাইনের মোটামুটি সকল প্রকার কাজ করা যায়। তার মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কাজগুলো হচ্ছে:

  • ক্যানভা সাহায্যে যেকোনো প্রকার সাইজের ছবি তৈরি করা যায় এবং সেটা এক্সপোর্ট করা যায়।
  • প্রয়োজনীয় যেকোনো ধরনের লোগো তৈরি করা যায় canva তে।
  • সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য পোস্ট তৈরি করা যায় এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে।
  • বিভিন্ন কভার ফটো, প্রোফাইল ফটো, স্টোরি পোস্ট ইত্যাদি তৈরি করা যায় ক্যানভা ইউজ করে।
  • নিজে নিজে চাইলে কাস্টম ভাবেও কোন কিছুর ডিজাইন তৈরি করে নেওয়া যায় ক্যানভাতে। 

ক্যানভা প্রো একাউন্ট থেকে কি কি সুবিধা পাওয়া যায়?

ক্যানভা প্রো একাউন্ট ব্যবহারে বেশ কিছু সুবিধা ভোগ করা সম্ভব হয়। আর সেগুলো হলো:

  • নিজের ইচ্ছামত হাই রেজুলেশন ও আনলিমিটেড ডাউনলোড করা যায় যে কোন তৈরিকৃত ডিজাইন।
  • সকল প্রিমিয়াম ফিচার আনলক
  • খুব সহজেই লোগো তৈরি করা যায়
  • নিজের ইচ্ছামত পোস্টার তৈরি করা যায়
  • সোশ্যাল মিডিয়াতে শিডিউল ফটো আপলোডের সুবিধা ভোগ করা যায়।
  • ২০০ এর বেশি ইংরেজি ফ্রন্ট ব্যবহার করার সুবিধা রয়েছে
  • ২৫ এর অধিক বাংলা ফ্রন্ট এর ব্যবস্থা রয়েছে ক্যানভাতে
  • ১০০ জিবি ক্লাউড স্টোরেজসহ আরো হাজারো ফিচার চালু রয়েছে এই গ্রাফিক্স প্লাটফর্মে
  • প্রিমিয়াম ফন্ট, গ্রাফিক্স ভিডিও এনিমেশন, টেমপ্লেট এবং কনটেন্ট এর সুবিধা ভোগ করা যায় ক্যানভা থেকে
আরও পড়ুনঃ  ফেসবুক আইডি হ্যাক ও ডিজেবল হওয়া থেকে নিরাপদ রাখার উপায়

ক্যানভা গ্রাফিক্স প্ল্যাটফর্ম এর প্রয়োজনীয়তা ও উপকারিতা

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এ সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত জেনেছি। তবে এ পর্যায়ে আলোচনা করব। 

দেখুন ইতোমধ্যে আমরা বলেছি ক্যানভা মূলত ব্যবহার করা হয় কোন কিছু ডিজাইন করার জন্য। আর আজকাল আমাদের অনলাইনে বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন ছোট ছোট ডিজাইন করার প্রয়োজন পড়ে।

আর স্বাভাবিকভাবেই আমরা এমন কিছু খুঁজে বেড়াই যেটা পেইড নয় অর্থাৎ ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারব। 

ক্যানভা হচ্ছে এটি ফ্রি গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার। মূলত এর বিশেষ কিছু সুবিধা রয়েছে আর সেগুলো হলো:

  • ক্যানভাতে ছবি তৈরি করার সাথে সাথে এক্সপোর্ট এবং শেয়ার করা যায়।
  • এর মোবাইল অ্যাপ থাকায় মোবাইলের মাধ্যমে ব্যবহার করাটাও সম্ভব হয়।
  • ক্যানভার ব্যবহার প্রক্রিয়া খুবই সহজ। এর দুটি ভার্সন রয়েছে মোবাইল ভার্সন এবং ওয়েব ভার্সন। যেকোনো একটি ব্যবহার করে খুব সুন্দর ডিজাইন করা সম্ভব হয় Canva গ্রাফিক্স ডিজাইন প্লাটফর্মের মাধ্যমে।
  • যেকোনো ধরনের ডিজাইন অটো সেভ করে রাখা যায় Canva তে।
  • এর কার্যকারিতা বিবেচনায় প্রিমিয়াম ভার্সন এর সাবস্ক্রিপশন ফ্রী অনেক কম এবং ডিজাইনের কাজ করার জন্য খুবই উপযুক্ত ও দারুন পছন্দের একটি সফটওয়্যার ক্যানভা।

তো সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা, যদি আপনি ক্যানভাতে ডিজাইন করা নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আমাদের সাজেস্টকৃত এই ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  ফেসবুক আইডি হ্যাক ও ডিজেবল হওয়া থেকে নিরাপদ রাখার উপায়

ক্যানভা এর সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

ক্যানভা প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিটি প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ২০১২ সালের দিকে।

জানা যায় অস্ট্রেলিয়াতে মেলানি পারকিনস দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয় এই কোম্পানিটি। আর আশ্চর্যজনকভাবে প্রথম বছরেই ক্যানভা ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৭ লক্ষ ৫০ হাজারে গিয়ে।

সামাজিক মাধ্যম এবং প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ গাইকাওয়াশাকি ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসের দিকে এই সংস্থাটির প্রধান প্রচারক হিসেবে যোগদান করেন।

আর ২০১৫ সালে কাজের জন্য ক্যানভা চালু করা হয় যা ব্যবসাকে একটি ডিজিটাল বিপণন উপকরণ উপস্থাপন করার সরঞ্জাম দিয়েছে।

২০১৬ ১৭ অর্থ বছরে ক্যানভা প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলার থেকে ২৩.৫ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলারে পৌঁছে যায় এবং অল্প সময়ের মধ্যে বেশ লাভজনক অবস্থায় পৌঁছায়।

মূলত ২০১২ সালে যাত্রা শুরু হওয়া সেই ক্যানভা প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি আজকের জনপ্রিয় গ্রাফিক্স নকশা প্রণয়নের সফটওয়্যার ও ওয়েব প্রতিষ্ঠাতা। বিশ্বব্যাপী এর কর্মী সংখ্যা ৮০০ প্লাস যার সদর দপ্তর অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। 

Canva একাউন্ট খোলার নিয়ম

এখন কথা হচ্ছে কিভাবে আপনি ক্যানভাতে আপনার নিজস্ব একাউন্ট খুলবেন? ক্যানভা ব্যবহার করবেন কিভাবে এ সম্পর্কে জেনেছেন তবে কেন বা ব্যবহারের পূর্বে যে আপনাকে একাউন্ট খুলতে হবে এর জন্য মূলত ধাপে ধাপে কয়েকটি কাজ সম্পন্ন করতে হবে। 

ক্যানভা অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করা খুবই সহজ। প্রথমত গুগলে সার্চ করুন ক্যানভা ডট কম লিখে। আপনার সামনে মূলত প্রথমেই ক্যানভা ডট কম ওয়েবসাইটের অফিসিয়াল লিংক সো করানো হবে।

সেই লিংকে প্রবেশ করুন এবং ক্রিয়েট করে ফেলুন আপনার নিজস্ব একটি অ্যাকাউন্ট। এ বিষয়ে সম্পূর্ণ ধারণা পেতে দেখে ফেলুন নিম্নে উল্লেখিত youtube ভিডিওটি। 

Canva দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এ সম্পর্কিত আরো লেখা পড়তে ভিজিট করুন Freelancing Therapy.com – ফ্রিল্যান্সিং থেরাপি ডট কম

পরিশেষে: আশা করি আমাদের আজকের এই আর্টিকেল আপনাদের ক্যানভা সম্পর্কিত প্রশ্নের খোরাক মেটাতে বেশ কাজে আসবে।

তো সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং আপনাদের মতামত কমেন্ট করে জানাবেন। সবাইকে আল্লাহ হাফেজ। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্ট হয়েছে!

মনে হচ্ছে আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে অ্যাড ব্লকার বন্ধ করতে হবে। যদি অ্যাডব্লকার ব্যবহার না করেন, তাহলে পেজটি রিফ্রেশ করুন।