ব্যবসা আইডিয়া

১০টি আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া

আজকের আর্টিকেলে আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসার কিছু সংক্ষিপ্ত আইডিয়া জানতে পারবেন। আর্টিকেলে উল্লেখিত আইডিয়াগুলো হতে পারে ব্যবসা করার জন্য অসাধারণ আইডিয়া। এই আইডিয়াগুলো কাজে লাগিয়ে আপনি ও হতে পারবেন একজন সফল ব্যবসায়ী।

আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া শব্দে অন্য রকম ভাব আছে। ব্যবসা করা অনেক মানুষের স্বপ্ন। আজকাল অনেকেই চাকরি থেকে ব্যবসা করতে বেশি পছন্দ করে। ব্যবসা শুরু করার জন্য কিছু ধারনা থাকা প্রয়োজন।

যদি ব্যবসার প্রতি আপনার কিছু ধারনা আগে থেকেই থাকে তাহলে অল্প দিনেই আপনি ব্যবসায় আলোর মুখ দেখতে পারবেন। বর্তমানে প্রেক্ষাপট বিবেচনায় কিছু কিছু ব্যবসা শুরু করা যায়।

সেসব ব্যবসায় পুঁজি কম লাগে আবার জায়গাও কম লাগে। খুব স্বল্প পরিসরেই এসব ব্যবসা শুরু করা যায়। এইসব সাধারণত আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা নামে পরিচিত। চলুন জেনে নেই আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসার কিছু আইডিয়া।

আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া
আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া

১০টি আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসার আইডিয়া

১. ফ্যাশন হাউজ ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমানে সবাই ফ্যাশনে সচেতন। পোশাক পরিপাটি রাখতে সবাই বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজের দিকে ছুটে। নিজেকে সবাই সুন্দর ভাবে দেখতে চায়।

ব্যবসা শুরু করার আগে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজ গুলোর দিকে খেয়াল রেখে মানুষের রুচি এবং পছন্দের দিক জেনে সেই সব আইটেম গুলো নিয়ে কাজ শুরু করতে হবে।

২. ইউটিউব চ্যানেল

বর্তমানে ইন্টারনেট যুগে প্রায় মানুষেই ইউটিউবে আসক্ত। এখন আমরা সবাই টিভি রেখে ইউটিউব দেখতে বেশি পছন্দ করি। আপনি চাইলেই ইউটিউবে নিজের একটা চ্যানেল খুলে সেখানে বিভিন্ন ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

কিন্তু ভিডিও করার একটা জিনিস খেয়াল রাখবেন আপনি যে ভিডিও করছেন তা যেনো কারো কপি না হয়। আপনার ভিডিও দেখে যদি মানুষ উপকৃত বা আনন্দ পায় তাহলে অল্প দিনেই আপনি ইউটিউবে পরিচিতি লাভ করবেন।

ভিডিও হতে পারে নানা রকম যেমন-

  • রান্নার ভিডিও
  • ট্রাভেল
  • রিভিও
  • লাইফ হ্যাক
  • নাচ
  • গান
  • সেলাই
  • টিউটরিয়াল
  • বিভিন্ন তথ্যবহুল ভিডিও
  • মজার কিছু জিনিস ইত্যাদি।

একজন সফল ইউটিউবার হলে পারলে আপনি সেখান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি এখানে ক্লিক করে ইউটিউব থেকে আয় করার বিষয়ে জানতে পারেন।

৩. কসমেটিক ব্যবসা আইডিয়া

প্রাচীন যুগ থেকেই নারীরা বিভিন্ন প্রসাধনী প্রিয়। সাজগোজ পূর্ণ করতে এই প্রসাধনীর বিকল্প নেই। বর্তমানে ভেজাল কসমেটিক এর ভিড়ে আসল কসমেটিক এর ব্যবসা হতে পারে লাভজনক।

আপনি যেকোনো দেশ থেকে আসল প্রোডাক্ট এনে ব্যবসা করতে পারেন। আপনার যদি ধীরে ধীরে পরিচিত বাড়ে এবং বিশ্বস্ততা বাড়ে তাহলে অল্প দিনেই আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

কসমেটিকস পাইকারি বাজার কোথায় আছে?

কসমেটিক ব্যবসা শুরু করার জন্য বেশি টাকা প্রয়োজন হবে না, আপনি চাইলেই বাসা-বাড়িতে বসেই এই ব্যবসা করতে পারবেন। আজকাল সবাই অনলাইনে কেনাকাটা করতে পছন্দ করে।

সেদিক বিবেচনায় নিজের কাজ ধরে রাখতে পারলে অল্পদিনেই আপনি অনেক টাকার মালিক হয়ে যাবেন।

৪. ফাস্ট ফুড শপ ব্যবসা আইডিয়া

প্রায় মানুষেই কম বেশি ফাস্ট ফুড খেয়ে থাকেন। তাই এই ফাস্ট ফুড শপ হতে পারে সুন্দর একটা ব্যবসা আইডিয়া। আমরা সবাই খাদ্য প্রিয়। কিন্তু ফাস্ট ফুট অনেকেই খুব বেশি পছন্দ করে।

কারো আবার প্রতিদিন বিকালের নাস্তা হিসেবে থাকে এই ফাস্ট ফুড। আপনি চাইলেই কোনো জনবহুল বা রোডের পাশে একটি বিশেষ জায়গায় ফাস্ট ফুডের শপ স্থাপন করতে পারেন।

আবার আপনি চাইলে অনলাইনে এই ব্যবসা করতে পারেন। ফাস্ট ফুড ব্যবসাকেও আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া বলা হয়।

৫. আইসক্রিম শপ ব্যবসা আইডিয়া

আইসক্রিম প্রায় আমরা সবাই পছন্দ করি। গরমের দিনে আইসক্রিম আমাদের স্বস্তি দেয়। তাই আইসক্রিম শপ হতে পারে চমৎকার ব্যবসার আইডিয়া।

একটি সুন্দর জায়গা বাছাই করে সেখানে আইসক্রিমের শপ বা ভ্যান স্থাপন করে আইসক্রিম বিক্রি করতে পারবেন। আপনার কাছে এটা ছোট ব্যবসা হতে পারে কিন্তু এটাও আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়ার মাঝে পরে।

৬.ডেলিভারি সার্ভিস ব্যবসা আইডিয়া

অনলাইনের যুগে অনেকেই নানা রকম উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সেই সব সেবা সবার কাছে পৌছানোর জন্য দরকার ভালো ডেলিভারি সার্ভিস। ডেলিভারি সার্ভিসকে নিয়ে কম বেশি সবাই বিপদে পরে থাকেন।

কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবসা করার নিয়ম

বর্তমানে প্রেক্ষাপটে এই ডেলিভারি সার্ভিস হতে পারে অসাধারণ একটি ব্যবসা। সঠিক ভাবে যদি সেবা দিতে পারেন তাহলে আপনি খুব অল্প সময়ে ভালো সুনাম অর্জন করতে পারবেন। নতুনের স্বাদ আছে বলেও এটাও একটি আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া।

৭. কাস্টমাইজ ড্রেস শপ ব্যবসা আইডিয়া

সুন্দর এবং রুচিশীল পোশাক কিনতে প্রায় মানুষেই বিভিন্ন বুটিক শপ গুলোতে যায়। সেদিক থেকে কাস্টমাইজ ড্রেস শপ হতে পারে একটি অন্যরকম উদ্যেগ।

অনেক সময় বিভিন্ন দোকান ঘুরেও মনের মতো জিনিস খুঁজে পাওয়া যায় না। সেদিকে বিবেচনায় এক দোকানেই যদি নিজের পছন্দ মতো ড্রেস তৈরি করার সকল সামগ্রী পাওয়া যায় তাহলে সেটি হবে খুব চমৎকার।

আজকাল অনেকেই ম্যাচিং ড্রেস পছন্দ করে, সেদিকে কাপল ড্রেস সবার শীর্ষে। অনেকেই আবার বসন্ত বা পহেলা বৈশাখ অথবা বিভিন্ন উৎসবে পরিবাবের সবার জন্য একই ড্রেস খুঁজে থাকে।

সেদিক থেকে বিবেচনা করলে কাস্টমাইজ ড্রেস হতে লাভজনক ও স্মার্ট একটি ব্যবসা আইডিয়া।

৮. বিউটি পার্লার বা সেলুন ব্যবসা আইডিয়া

বিভিন্ন উৎসব অনুষ্ঠানে সবাই সাজগোজ করে থাকে। আজকাল ছেলেরাই ফ্যাশন সচেতন। সবাই চুল কাটা থেকে শুরু করে সব কিছুতেই অন্য রকম লুক আনতে চায়।

আর মেয়েরা তো আগে থেকেই সাজগোজ করতে পছন্দ করে। তাই একটি পরিপাটি বিউটি পার্লার বা সেলুন হতে পারে অন্যরকম ব্যবসা। আপনি এই ব্যবসা থেকেও অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়াটা মন্দ নয়।

৯. মোবাইল রিপেয়ারিং ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমান যুগে সবার হাতে স্মার্ট ফোন আছে। ফোন ছাড়া আজকাল কারো দিন শুরু হয় না। একদিন যদি ফোন অচল থাকে তাহলে আমরা সবাই দিশেহারা হয়ে যাই।

ফোন যেহেতু আমরা সবাই প্রতিনিয়ত ব্যবহার করি তাই ফোন নষ্টও হয়। তাই মোবাইল রিপেয়ারিং কাজটি লাভজনক। আপনি একটু কাজ শিখে স্বল্প পরিসরেই মোবাইল রিপেয়ারিং কাজটি করতে পারবেন।

এই কাজ করার জন্য খুব বেশি পরিশ্রমের প্রয়োজন হয়া না। আবার খুব বেশি মুলধনের ও দরকার হয় না। আপনি চাইলেই এই কাজটি করতে পারেন। মোবাইল রিপেয়ারিং ব্যবসাকে আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া বলা হয়।

১০. টয় শপ ব্যবসা আইডিয়া

বাচ্চারা সবসময় খেলনা পছন্দ করে। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সবকিছু পরিবর্তন হলেও বাচ্চাদের খেলনার ধরণ পরিবর্তন হয়নি। এখন নানা ধরনের আধুনিক খেলনায় বাজার ভর্তি।

যেকোনো বাচ্চাকে খুশি করার জন্য সবার আগে আমাদের মাথায় আসে এই খেলনা। তাই আপনার জন্য খেলনার দোকান হতে পারে অসাধারন একটি ব্যবসা।

আপনি একটি সঠিক জায়গা বাছাই করে সেখানে দোকান স্থাপন করে সুন্দর করে সাজিয়ে শুরু করতে পারেন এই খেলনার ব্যবসা। আপনি চাইলেই আবার অনলাইনে এই ব্যবসা করতে পারেন।

তাহলে একটি কর্মজীবী ও ব্যস্ত মানুষ অফিসে বা ঘরে বসেই পছন্দের খেলনা অর্ডার করতে পারবে।

আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসা আইডিয়া নিয়ে শেষ কথা

এই ছিলো আজকের আধুনিক ও স্মার্ট ব্যবসার কিছু সংক্ষিপ্ত আইডিয়া। উপরের বিষয় গুলো হতে পারে ব্যবসা করার জন্য অসাধারণ আইডিয়া। এই আইডিয়াগুলো কাজে লাগিয়ে আপনি ও হতে পারবেন একজন সফল ব্যবসায়ী।

আমাদের আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে অবশ্যই তা কমেন্ট করে জানাবেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ্য থাকবেন, আল্লাহ হাফেজ।

খাদিজা আক্তার

প্রযুক্তি বলতে কোনো একটি প্রজাতির বিভিন্ন যন্ত্র এবং প্রাকৃতিক উপাদান প্রয়োগের ব্যবহারিক জ্ঞানকে বোঝায়। বিজ্ঞানের আবিষ্কারকে মানুষের প্রায়োগিক কাজে লাগানোর উপায়কে প্রযুক্তি বলে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্ট হয়েছে!

মনে হচ্ছে আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে অ্যাড ব্লকার বন্ধ করতে হবে। যদি অ্যাডব্লকার ব্যবহার না করেন, তাহলে পেজটি রিফ্রেশ করুন।