টেক জ্ঞান

অ্যাপ ক্লোনার কি? কখন, কিভাবে ব্যবহার করা হয়?

অ্যাপ ক্লোনার কি?

‘অ্যাপ ক্লোনার’ আপনাকে একই অ্যাপের দুটি সংস্করণ ব্যবহার করার অনুমতি দেয়। আরো সহজ করে বলতে গেলে, অ্যাপ ক্লোনার হলো এমন একটি অ্যাপ যার সাহায্যে নির্দিষ্ট একটি অ্যাপকে দুই বা তার অধিক অ্যাপে রুপান্তর করা হয়।

একটা অ্যাপকে অধিক অ্যাপে নুতুন সংস্করন করার ফলে একসাথে একই ফোনে প্রতিটি অ্যাপ ভিন্ন ভিন্ন অ্যাকাউন্ট অ্যাক্সেস করা যায়। এভাবেই এক অ্যাপের মাধ্যমে ক্লোন করে দুই বা তার অধিক অ্যাকাউন্ট অ্যাক্সেস করা যায়।

অ্যাপ ক্লোনারের মূল কাজ হলো আপনার ফোনের নির্দিষ্ট একটি অ্যাপের ক্লোন বা কপি তৈরি করা যাতে অনেকগুলো অ্যাকাউন্ট একসাথে ব্যবহার করা যায়। অর্থাৎ, আপনি অ্যাপ ক্লোনার এর সাহায্যে একটি অ্যাপকে দুটি অ্যাপ বা তারও অধিক অ্যাপ এ রুপান্তর কর‍তে পারবেন এবং সে অ্যাপগুলোতে বিভিন্ন অ্যাকাউন্ট ব্যবহার কর‍তে পারবেন।

ব্যবহারকারীরা যাতে একটা অ্যাপকে দুই বা তার অধিক কাজে ব্যবহার করতে পারে। অ্যাপ ক্লোনার মূলত এই উদ্দেশ্য নিয়েই তৈরি করা হয়েছে।

এটা অনেকটা ফেসবুক, ফেসবুক লাইট ও ম্যাসেঞ্জার অ্যাপের মতো। ফেসবুক অ্যাপে আপনি একটা অ্যাকাউন্ট ও লাইট অ্যাপে একটা অ্যাকাউন্ট চালাতে পারবেন।

আবার যুদি ম্যাসেঞ্জার আপনার ফোনে ইনস্টল থাকে তাহলে আপনি ম্যাসেঞ্জারে আরেকটা অ্যাকাউন্ট চালাতে পারবেন। তাহলে আপনি একটা ফোনে টোটাল ৩টা অ্যাকাউন্ট অ্যাক্সেস করতে পারছেন।

অ্যাপ ক্লোনার অনেকটাই এভাবে কাজ করে। অ্যাপ ক্লোনার নির্দিষ্ট অ্যাপকে সেইম মডিউলে ক্লোন বা কপি করে। অরিজিনাল অ্যাপে যা থাকে ক্লোন করা অ্যাপেও তাই থাকে। তাই আপনি একসাথে দুই বা তিনটা অ্যাপ ক্লোন করে দুই বা তিনটা অ্যাকাউন্ট চালাতে পারবেন।

অ্যাপ ক্লোনার কখন ব্যবহার করা হয়?

মনে করুন আপনার ফোনে একটি হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জার আছে এবং সে হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে আপনার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট লগ ইন করা আছে।

এখন আপনার প্রয়োজনে অন্য একটি অ্যাকাউন্টে লগ ইন করতে হবে, এখন আপনি কি করবেন? নিশ্চয়ই প্রথমে আপনার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জার থেকে লগ আউট করে তারপর অন্য অ্যাকাউন্ট লগ ইন করবেন, তারপর ব্যবহার করা শেষ হলে আবার এই অ্যাকাউন্ট লগ আউট করে আবার আপনার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট লগ ইন করবেন তাই না? কিন্তু ততক্ষনে আপনার অনেক মূল্যবান সময় ও মেধা ব্যয় হবে।

একই কাজ যদি আপনি অ্যাপ ক্লোনারের সাহায্যে করেন তাহলে আপনার সময়ও বাঁচবে এবং কোন প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না।

যেমনঃ আপনি অ্যাপ ক্লোনারের সাহায্যে হোয়াটসঅ্যাপ বা ম্যাসেঞ্জারের একটা অ্যাপ ক্লোন করলেন। এখন আপনার ফোনে দুইটা হোয়াটসঅ্যাপ বা ম্যাসেঞ্জার বিদ্যমান রয়েছে।এখন আপনি সেই ক্লোন করা হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে আপনার অন্য অ্যাকাউন্ট লগ ইন করলেন এবং আপনার প্রয়োজনীয় কাজ সারলেন।

কাজ শেষে অ্যাপ ক্লোনার থেকে ক্লোন করা হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারটি ডিলিট বা আনইনস্টল করে দিলেন। ব্যাস সহজেই হয়ে গেলো, কোন প্রকার লগ আউট এর ঝামেলা ছাড়াই।

আশা করি সহজে বুঝাতে পেরেছি অ্যাপ ক্লোনার কি? ও অ্যাপ ক্লোনার কি কাজে ব্যবহার করা হয়? এবার যদি আপনার দুই অ্যাকাউন্ট অ্যাক্সেস করতে হয় তাহলে অ্যাপ ক্লোনারের সাহায্যে আপনিও এভাবে আপনার কাজ সম্পন্ন করতে পারেন। ক্লোন করা অ্যাপের বিশেষ সুবিধা আছে বলেই আপনি আপনার কাজ সঠিকভাবে সময়মতো সম্পন্ন করতে পারবেন।

প্রযুক্তি সম্পর্কৃত সকল প্রকার তথ্য সহজ ভাষায় জানতে আমাদের সাথেই থাকুন।

ধন্যবাদ

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্টেড

আপনি সম্ভবত অ্যাডব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করতে চাইলে অবশ্যই অ্যাডব্লকার ডিজেবল করতে হবে।