টেক জ্ঞান

OTP কি? ওটিপি কাকে বলে? ওটিপির ব্যবহার ও পূর্ণরূপ জানুন ২০২২

OTP, এই ইংরেজি বর্ণের তিনটি শব্দের সাথে আমাদের সকলেরই সম্পর্কে রয়েছে। কিন্তু এই OTP শব্দটির পূর্নরুপ কারোই জানা নেই এবং কেনো ব্যবহার করা হয় এই OTP মাধ্যমটি তাও হয়তো অনেকেই জানে না। আর তাই আজ আপনাদের জানার সুবিধার্থে আমার এই আর্টিকেল। 

OTP এর পূর্ণরূপ হলো One Time Password

এবার চলুন জানি কেনো ব্যবহার করা হয় OTP অর্থাৎ One Time Password 

আমরা যখন অনলাইন থেকে কোন পণ্য কেনা কাটা করি তখন আমাদের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করি তাই না। 

ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা দেয়ার সময় পাসওয়ার্ড দেবার পর ৪ অথবা ৮ সংখ্যার একটি কোড মেসেজ আকারে আমাদের কাছে  আসে আর তখন এটি আমরা OTP যেখানে চায় সেখানে দেই। তারপর একাউন্ট থেকে টাকা ট্রান্সফার হয়।

OTP যেসব কাজে বেশি ব্যবহার হয়? 

  • জিমেইল এর পাসওয়ার্ড পরিবর্তন অথবা নাম পরিবর্তন করা ইত্যাদি কাজে ব্যবহার হয় OTP (One Time Password)।
  • রকেট একাউন্ট তৈরি করতে বা পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করার সময় ব্যবহার করা হয় OTP (One Time Password)।
  • ফেইসবুক পাসওয়ার্ড ভূলে গেলে নতুনভাবে পাসওয়ার্ড পাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয় OTP (One Time Password)।
  • Google একাউন্ট খোলার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে OTP (One Time Password)।
  • কোন নতুন একাউন্ট Sign Up করা জন্য ব্যবহার করা হয় OTP (One Time Password)।

বিকাশ, নগদ, ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ইত্যাদি সকল গোপনীয় মাধ্যম গুলিতে এর ব্যবহার ব্যপকভাবে ছড়িয়ে রয়েছে। 

OTP ব্যবহার কেনো করা হয়?

OTP অর্থাৎ One Time Password এমন একটি মাধ্যম বা কোড যা শুধুমাত্র একবার ব্যবহার করা যায় এবং এর ব্যবহার সময় সীমাবদ্ধ করা থাকে তাই এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুব দারুণ।

OTP শুধুমাত্র অনলাইন বা গুরুত্বপূর্ণ কাজের নিরাপত্তার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।
OTP ব্যবহার করার মূল কারণই হচ্ছে যাতে করে আপনার একাউন্ট অন্য কেউ হ্যাক বা চুরি না করতে পারে। একথায় শক্তিশালী নিরাপত্তা দেয়ার জন্য OTP ব্যবহার করা হয়। 

প্রয়োজনীয় আরো তথ্য পেতে যোগ দিন BANGLATECHSPOT YT

OTP কেনো নিরাপদ মাধ্যম? 

যখন আমরা আমাদের প্রয়োজনের জন্য কোন প্রকার একাউন্ট খুলি, যেমনঃ গুগল একাউন্ট, ফেইসবুক একাউন্ট, টুইটার একাউন্ট, ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট, ইয়াহু একাউন্ট ইত্যাদি ধরনের একাউন্ট খুলি তখন এর নিরাপত্তা নিয়েও ভাবতে হয়।

নয়তো আমাদের এই সব একাউন্টে ব্যাক্তিগত ছবি, ভিডিও, ফাইল ইত্যাদি থাকে, সেই সব চুরি হয়ে যেতে পারে যার জন্য নানা ধরনের নিরাপদ মাধ্যম রয়েছে চুরি হওয়া থেকে বাচার জন্য। তবে সকল নিরাপদ মাধ্যম থেকে OTP মাধ্যমটি বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হচ্ছে। এর মূল কারণ হলো এর নিরাপত্তার মাধ্যম খুব সহজ ও কেউ সহজে  হ্যাক করতে পারে না এই OTP মাধ্যমটিকে । 

কেনো OTP নিরাপদ মাধ্যম তার রহস্য হচ্ছে এর ব্যবহারের নিয়ম। যে কেউ চাইলেই আপনার এই OTP চুরি করতে পারবে না এই OTP শুধু সেই পাবে যার কাছে OTP যাওয়ার অনুমতি রয়েছে তাহলে চলুন জানা যাক OTP কয়টি পদ্ধতিতে পাওয়া যায়। 

OTP কয়টি পদ্ধতিতে পাওয়া যায় ও কি কি পদ্ধতি? 

OTP (One Time Password) ৩টি পদ্ধতিতে পাওয়া যায়।

  • ১ম পদ্ধতি হলো এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার মোবাইল ফোনে আসবে ৪ বা ৮ ডিজিটের একটি মেসেজ যা আপনার OTP (One Time Password) নাম্বার এবং এ দিয়ে উপরে বলা কাজগুলি খুব সহজেই করতে পারবেন।
  • ২য় পদ্ধতি হলো ভয়েস কলিং অর্থাৎ অফিসিয়াল একটি নাম্বার থেকে ফোন কল আসবে আপনার মোবাইল ফোনে তখন সেই কল এর মাধ্যমে আপনি পেয়ে যাবেন আপনার OTP (One Time Password) Code টি। 
  • ৩য় পদ্ধতি হলো আপনি জিমেইল এর মাধ্যমেও পেয়ে যেতে পারেন OTP (One Time Password) Code টি। 

এই ৩টি OTP পদ্ধতিতে কোনটি বেশি ভালো? 

উপরে দেখানো ৩টি পদ্ধতি ভালো তবে এখানে বেশি ভালো ও সহজ হলো এসএমএস মাধ্যমটি। আপনার মোবাইলে একটি মেসেজ আসবে তা দেখেই আপনি আপনার কাজ খুব কম সময়ের মাঝেই করে ফেলতে পারবেন।

 ভয়েস কলিং মাধ্যমটি একটু ঝামেলার কেনো না অনেক সময় কল আসতে একটু সময় নেয়।
মেসেজ অর্থাৎ জিমেইল এর মাধ্যমেও সময় নেয়।

আবার দেখা যায় অনেকেই নিজের জিমেইল এর পাসওয়ার্ড ভূলে যায় সুতরাং যদি আপনি কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়া OTP পেতে চান তাহলে অবশ্যই এসএমএস মাধ্যমটিই ব্যবহার করুন। 

OTP পাওয়ার মাধ্যম বেছে নিতে যা করতে হবে?  

আপনি লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যেসব একাউন্ট থেকে OTP আসে সেই সব একাউন্ট তৈরি করার সময় OTP কোথায় আসবে অর্থাৎ কোন পদ্ধতি দিয়ে আপনি OTP পেতে চান সে সম্পর্কে একটি নোটিফিকেশন আসে।

আর তখনই আপনি যে পদ্ধতিতে পেতে চান আপনার OTP (One Time Password) শুধু সে পদ্ধতি বেছে নিবেন তাহলেই হয়ে যাবে আপনার কাজ।

আপনার এই OTP (One Time Password) নিয়ে যদি কোন প্রকার প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করতে ভূলবেন না। আমরা আছি আপনার সকল প্রশ্নের উত্তর দেয়ার অপেক্ষায়।

ধন্যবাদ

জাহিদুল ইসলাম

শিখতে ভালোবাসি :)

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্টেড

আপনি সম্ভবত অ্যাডব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করতে চাইলে অবশ্যই অ্যাডব্লকার ডিজেবল করতে হবে।