টিপস এন্ড ট্রিকস

জন্ম নিবন্ধন যাচাই yyyy mm dd | অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন যাচাই yyyy mm dd, জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি, জন্ম নিবন্ধন আবেদন যাচাই, জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

ভিডিও দেখে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করুন

দেখুন কিভাবে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হয়

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করছি সকলেই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন।

আজকে এই আর্টিকেলে আমরা আপনাকে জানাবো কিভাবে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করা সহ কিভাবে আপনারা অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড করবেন সেটিও জানতে পারবেন।

অবশ্যই আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। তাহলেই৷ জন্ম নিবন্ধন যাচাই yyyy mm dd দিয়ে সহজেই করতে পারবেন।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই yyyy mm dd

আগে চলুন জানি yyyy mm dd মানে কি। কারণ এইটা জানা বেশ জরুরি।

বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার উপায়
  • yyyy এটা হলো জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্মসাল।
  • mm মানে হলো জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্মের মাস।
  • আর dd মানে হলো জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম তারিখ।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করার সময় জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম সাল, জন্মের মাস ও জন্ম তারিখ দিতে হবে। নইতো জন্ম তারিখ অনলাইনে চেক করতে পারবেন না।

অনলাইনে জন্ম সাল, মাস, তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে রয়েছে কিনা তা জানার জন্য বেশ কিছু উপায় আছে। চলুন আমরা একে একে উপায়গুলো জানি।

উপায়গুলো জানা থাকলে আপনি খুব সহজেই yyy mm dd দিয়ে আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর সাহায্যে জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করতে পারবেন।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই

বর্তমানে আপনি চাইলে ঘরে বসেও ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করতে পারবেন। মোবাইল অথবা কম্পিউটারের সাহায্যে সহজেই অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক সহ এর কপিও ডাউনলোড করা যায়।

  • ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করার জন্য আপনি প্রথমে নিচের লিংকে প্রবেশ করুন।

everify.bdris.gov.bd

  • উপরের লিংকে প্রবেশ করার পর নিচের ছবির মতো একটি পেজ ওপেন হবে।
জন্ম নিবন্ধন যাচাই পদ্ধতি

এই পেজে আপনাকে জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম নিবন্ধন কোড ও জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম সাল জন্মের মাস ও জন্ম তারিখ দিতে হবে। এগুলো দিয়েই কেবলমাত্র আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ  জন্ম নিবন্ধন ফি কত টাকা ২০২২

জন্ম নিবন্ধন সঠিকভাবে যাচাই করার জন্য আপনাকে নির্ভুলভাবে ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিতে হবে।

  • উপরের ছবিতে থাকা প্রথম ঘরটিতে (যে ঘরের উপরে Birth Registration Number লিখা) জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি লিখুন।
  • এরপর দ্বিতীয় ঘরে (যে ঘরের উপরে Date of Birth yyyy mm dd লেখা) জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্মসাল, জন্মের মাস ও জন্ম তারিখ লিখতে হবে।

জন্ম তারিখ লিখার সময় অবশ্যই আপনাকে প্রথমে জন্মসাল দিতে হবে, তারপর জন্মের মাস এবং শেষে জন্ম তারিখ দিতে হবে। যদি জন্ম তারিখ বা মাদ আগে পরে দেন তাহলে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা হবেনা।

জন্ম সাল, মাস, তারিখ দেয়া হয়ে গেলে এবার আপনাকে ক্যাপচা লিখতে হবে।

  • The answer is এর ঘরে আপনাকে উপরে দেখানো সংখ্যার গাণিতিক প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। অবশ্যই সময় নিয়ে সঠিক উত্তর লিখবেন।
  • সঠিক ক্যাপচা দেয়ার পর এবার আপনাকে Search বাটনটিতে ক্লিক করতে হবে।

যদি আপনার জন্ম নিবন্ধনটি ডিজিটাল হয়ে থাকে তাহলে সাথে সাথেই আপনাকে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য দেখানো হবে। অন্যথায় পাওয়া যায়নি বলে আপনাকে নোটিশ করা হবে।

আশা করছি আপনি আমার দেখানো ধাপগুলো ফলো করে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য অনলাইনে চেক করতে পেরেছেন। আমি যে উপায়ে আপনাদের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা দেখিয়েছে এটিই সবচেয়ে সহজ এবং জাতীয় উপায়।

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আপনাকে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য অবশ্যই জন্ম তারিখ ও জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ব্যবহার করতে হবে।

আমার দেখানো পদ্ধতি খুবই সহজ। আপনি খুব সহজেই আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোন বা ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার দিয়েই জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ  জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড PDF | পিডিএফ জন্ম সনদ ফরম ডাউনলোড করার লিংক

যাচাই করার জন্য জন্ম নিবন্ধনে থাকা ১৭ ডিজিটের নিবন্ধন নাম্বার ও নিবন্ধে থাকা জন্ম তারিখ মাস ও সাল সঠিকভাবে লিখে তারপর গাণিতিক ক্যাপচার সঠিক উত্তর দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হবে।

আপনি এই পদ্ধতি অনুযায়ী যেকোন মানুষের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন। তবে আপনাকে তার জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিটের নাম্বার এবং জন্ম নিবন্ধনে থাকা সঠিক জন্ম সালটি জেনে নিতে হবে।

আমরা উপরে যে ছবিটি দিয়েছি এবং যে উপায় উল্লেখ করেছি সেটি ফলো করে আপনি যে কারোর জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করতে পারবেন।

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই

অনেকের জন্ম নিবন্ধন ১৬ সংখ্যার হয়। এক্ষেত্রে প্রথমে ১৬ সংখ্যাকে ১৭ সংখ্যায় রুপান্তর করতে হবে।

যারা তাদের জন্ম নিবন্ধন অনেক আগে করেছিলো তাদের জন্ম সনদ হাতে লেখা হয়েছিলো। তখনকার সময়ে জন্ম সনদগুলো অনলাইনে থাকতো না, সেগুলো ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন এর রেজিস্টার বইতে হাতে লিপিবদ্ধ করা হতো।

পরবর্তি সময় যখন এই নিবন্ধন গুলো ডিজিটাল জন্ম সনদ করা হয়। এবং সেই থেকে ডিজিটাল সনদ নিবন্ধন শুরু হয় যা বর্তমানে চলমান রয়েছে।

নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

অনেকেই আছেন যারা কিনা শুধুমাত্র নাম দিয়ে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান। তারা ভুল প্রক্রিয়া অবলম্বন করে যার ফলে জন্ম নিবন্ধন চেক করা হয়না।

শুধুমাত্র নাম দিয়েও জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা যায়। নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার সুযোগ আছে। তবে তা শুধুমাত্র ইউনিয়ন পরিষদ, সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ইত্যাদি প্রাতিষ্ঠানিক কার্যালয়ে করা যায়।

আপনি যদি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করতে চান, তাহলে অবশ্যই জন্ম তারিখ ও জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে করতে হবে।

অনলাইনে নাম ব্যবহার করে জন্ম নিবন্ধন চেক করার কোন উপায় নেই।

ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন যাচাই

অনেক সময় আমাদের জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল কিনা তা জানার প্রয়োজন হয়। চাকরি, পড়াশোনা, ব্যাংক সহ নানা ধরনের প্রতিষ্ঠান নানা কাজের জন্য এই ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন চেয়ে বসেন।

আরও পড়ুনঃ  জন্ম নিবন্ধন আবেদন যাচাই - জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা

জন্ম সনদটি আসল কিনা এবং জন্ম সনদের তথ্য সঠিক কিনা এসব জানার জন্য আমাদের ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করার প্রয়োজন হয়।

ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হলে আপনাকে নিচের ছবিটি ভালো করে খেয়াল করতে হবে।

  • আপনি যদি উপরের ছবিটি খেয়াল করেন, তাহলে দেখতে পাবেন সেখানে প্রথম ঘরে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিতে বলবে। আপনার জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী সেই ঘরে ১৭ ডিজিটের জন্ম সনদ নাম্বার দিতে হবে।
  • এরপর দ্বিতীয় ঘরে খেয়াল করলে দেখতে পাবেন সেখানে জন্ম তারিখ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এই ঘরে আপনার জন্ম সনদে থাকা জন্ম সাল, মাস এবং তারিখটি দিন। অবশ্যই শুরুতে জন্মসাল দিতে হবে এবং পরে মাস এবং শেষে তরিখ দিতে হবে
  • জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ দেওয়া হয়ে গেলে এবার আপনাকে গাণিতিক ক্যাপচা পূরণ করতে হবে। এই ক্যাপচা পূরণ খুবই সহজ। ভালো করে খেয়াল করলে এটির সমাধান আপনি খুব সহজেই করতে পারবেন।

ক্যাপচা লিখে সার্চ বাটনে ক্লিক করলেই আপনার সামনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য চলে আসবে। যদি না আসে তাহলে আবার ভালো করে সব সঠিক তথ্য দিয়ে পূনরায় চেক করুন।

যদি এবারেও না আসে এবং No online information লেখাটি আসে, তাহলে বুঝে নেবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে নেই।

যদি অনলাইনে না থাকে তাহলে আপনাকে অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদে যোগাযোগ করতে হবে।

শেষ কথাঃ আমি আশা করি আজকের আর্টিকেলে আপনাদের অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করার সহজ নিয়ম জানাতে পেরেছেন। যদি কোথাও বুঝিতে অসুবিধা হয়, তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন। আমরা আপনার জন্য কমেন্ট বক্স উন্মোক্ত করে রেখেছি৷ ধন্যবাদ।

মোঃ আশিক মিয়া

মাতৃভাষায় প্রযুক্তি জ্ঞান ছড়ানোর ক্ষুদ্র প্রয়াস। ভালো লাগে প্রযুক্তির জ্ঞান বাংলা ভাষাভাষীদের সাথে ভাগ করে নিতে।

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button

অ্যাডব্লকার ডিটেক্ট হয়েছে!

মনে হচ্ছে আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন। আমাদের সাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে অ্যাড ব্লকার বন্ধ করতে হবে। যদি অ্যাডব্লকার ব্যবহার না করেন, তাহলে পেজটি রিফ্রেশ করুন।